পুষ্টির চাহিদা পূরনের জন্য আমাদের প্রতিদিন প্রচুর পরিমানে শাকসব্জি খাওয়া প্রয়োজন। কিšত্ত আমাদের দেশে মাথাপিছু প্রায় ৫৩ গ্রাম শাকসব্জি উৎপাদন হয়ে থাকে। শাকসব্জি ও ফল মূল থেকে যে সব পুষ্টি উপাদান অতি সহজে পাওয়া যায় তা বহু জটিল রোগকে প্রতিরোধ করে। প্রয়োজনীয় পরিমানে শাকসব্জি না খাওয়ার কারনেই আমাদের দেশের জনগোষ্ঠির বিরাট অংশ চরম পুষ্টিহীনতায় ভূগছে এবং নানাবিধ রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। আমাদের দেশের বেশীরভাগ জমিই দানাদার ফসল চাষের আওতায় থাকায় শাকসব্জি উৎপাদন চাহিদার তুলনায় নগন্য। অত্র গোদাগাড়ী উপজেলা দানা জাতীয় শস্যের উদ্বৃত্ত এলাকা হলেও শাক সব্জি উৎপাদন চাহিদার তুলনায় অত্যন্ত কম, তাও আবার বিশেষ মৌসুমে চাষ হয়ে থাকে। এখানে আগাম জাতের হাইব্রীড টমেটো ছাড়া অন্যান্য সব্জীর উৎপাদন হয়না বললেই চলে। এ সুযোগে কিছু কিছু বুদ্ধিমান কৃষক শাকসব্জীর চাষ করে প্রচুর মুনাফা অর্জন করছে। তাই সকল কৃষকেরই শাকসব্জি চাষে এগিয়ে আসার সুযোগ রয়েছে। বিশেষ করে বরেন্দ্র এলাকা সেচ সুবিধার আওতায় আসার ফলে শাকসব্জী চাষের বিপুল সম্ভাবনার সৃষ্টি হয়েছে। কাজেই আমাদের উচিৎ এই বিপুল সম্ভাবনাকে কাজে লাগিয়ে শাকসব্জির আবাদ বাড়ানো।

উত্তর সমূহ